Sat, January 28, 2023
রেজি নং- আবেদিত

শিশু সন্তানকে হত্যার পর পিতার আত্মহত্যা

শিশু পুত্র শাহীনকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর ফাঁসিতে ঝুলে পিতা রনজু মিয়া আত্মহত্যা করেছে। বৃহস্পতিবার বিকালে ঘাটাইল উপজেলার জামুরিয়া ইউনিয়নের কাত্রা গ্রামে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। পুলিশ তাদের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায় ,উপজেলার জামুরিয়া ইউনিয়নের কাত্রা গ্রামের আঃ গফুরের ছেলে রনজু মিয়া (২৫)। বৃহস্পতিবার দুপুর বার টার সময় তার স্ত্রী শামীমা ও তার দেড় বছরের শিশু পুত্র শাহীনকে নিয়ে বাড়ির পাশের আনিছের রাইচ মিলে ধান ভাঙ্গাতে যায়।

ধান ভাঙ্গাতে দেরি হওয়ায় রনজু মিয়া তার ছেলেকে নিয়ে বাড়িতে চলে আসে। বাড়িতে এসে রনজু তার ছেলেকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে তার লাশ বালিশ ও পিড়ি দিয়ে ঢেকে রাখে।

শিশু পুত্রকে হত্যার পর তার বাবা রনজু  নিজ ঘরের আড়ার সাথে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

বেলা দুইটার সময়  রনজুর স্ত্রী শামীমা ধান ভাঙ্গিয়ে বাড়ি ফিরে শিশু পুত্র শাহীনের লাশ বালিশ চাপা অবস্থায় এবং তার স্বামীর লাশ ঘরের আড়ার সাথে ফাঁস দেয়া অবস্থায় দেখতে পায়।

শামীমার ডাক চিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে পিতা-পুত্র দুজনের লাশ উদ্ধার করে এবং ঘাটাইল থানার পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

রনজু মিয়ার মা রানী বেগম জানায় ৫/৬ মাস যাবত রনজু মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছে। তার মা ও চাচা মজিবর রহমানসহ পরিবারের লোকজনের ধারনা মানসিক ভারসাম্যহীনতার কারণে সে এ রকম ঘটনা ঘটিয়েছে।

ঘাটাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মোখলেছুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন পিতা-পুত্র দুজনের লাশ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে। তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে দাবী করা হয়েছে যে, মানসিক ভারসাম্যহীনতার কারণে সে এ রকম ঘটনা ঘটিয়েছে। তবে ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হবে জানান তিনি।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

এই সম্পর্কীত আরো সংবাদ পড়ুন

মসজিদুল হারাম ও মসজিদে নববীতে প্রশাসনিক উচ্চপদে নারীদের নিয়োগের সিদ্ধান্ত

সৌদি আরবের পবিত্র নগরী মক্কার মসজিদুল হারাম ও মদীনার মসজিদে নববীতে প্রশাসনিক উচ্চপদে নারীদের নিয়োগের

বিস্তারিত »